ঢাকা, সোমবার ৩০ নভেম্বর ২০ || ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭    Banglarpratidin.com

ময়মনসিংহে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে ৫৪৩কোটি টাকার প্রকল্প।। পরিদর্শনে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।।

আরিফ রব্বানী

প্রকাশিত: ১২:০৩ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০

ময়মনসিংহে  নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে ৫৪৩কোটি টাকার প্রকল্প।। পরিদর্শনে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।।

ময়মনসিংহে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে ৫৪৩কোটি টাকার প্রকল্প।। পরিদর্শনে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।।

নান্দাইল বাসীর স্বপ্ন পূরণ করতে স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিনের আমন্ত্রনে উপজেলার বিভিন্ন নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করতে নান্দাইলে আগমন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি। । বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর বেলা ১১ টায় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় প্রস্তাবিত কয়েকটি প্রকল্প পরিদর্শনে ঝটিকা সফর করেন। প্রতিমন্ত্রীর আগমনে তাকে ত্রিশাল হাইওয়ে রাস্তার মাঝে রফিক উদ্দীন ভুইয়া সেতুর সংলগ্ন আতাউরের মোড়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আধুনিক নান্দাইলের উন্নয়নের রুপকার স্থানীয় সাংসদ আনোয়ারুল আবেদীন খাঁন তুহিন দলীয় নেতাকর্মীদেরকে সাথে নিয়ে ফুল দিয়ে বরণ করেন।এ সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ জুয়েল , পৌর মেয়র রফিক উদ্দিন ভূঞা, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শোভন রাংসা, জেলা পরিষদের সদস্য আবু বক্কর সিদ্দিক বাহারসহ, প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা বৃন্দ, পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ,ইউপি চেয়ারম্যান বৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। প্রতিমন্ত্রী তার সংক্ষিপ্ত সফরে নান্দাইল উপজেলাধীন চর বেতাগৈর ইউনিয়নে উজান পাড় কমর ভাঙ্গা বেড়ি বাঁধ, নরসুন্দা নদীর তীরবর্তী এলাকা, মারকাস মসজিদ সংলগ্ন নদীর পাড়, সরকারি শহীদ স্মৃতি আদর্শ কলেজের মাঠের নদীর পাড়, নান্দাইল মডেল থানা,নান্দাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকা,চন্ডীপাশা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন নরসুন্দা নদীর তীরবর্তী এলাকা পরির্দশন করেন। সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, স্থায়ী বাঁধ নির্মানের জন্য ৫৪৩ কোটি টাকার একটি মেগা প্রকল্প অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।এর মধ্যে ১৬.৫৮ কিঃ নতুন বাঁধ নির্মানে বরাদ্ধ ধরা হয়েছে ৫১৫ কোটি টাকা এবং ৩২.৮২ কিলোঃ মিটার স্থায়ী বাঁধ মেরামতের জন্য বরাদ্ধ ব্যয় ধরা হয়েছে ১৮ কোটি টাকা। স্থানীয় সাংসদের আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন,প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে জনদূর্ভোগ লাঘব হবে