ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারি ২১ || ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭    Banglarpratidin.com

ময়মনসিংহে" আশ্রয়নে অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ২০:১৩ ২২ জানুয়ারি ২১

ময়মনসিংহে" আশ্রয়নে অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার

ময়মনসিংহে" আশ্রয়নে অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার

“ আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার” এই প্রতিপাদ্য বিষয় সামনে রেখে ময়মনসিংহে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১৩০৫টি ভূমিহীন, গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান করা হবে। জানান ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের উদ্যোশে তিনি আরো জানান, ময়মনসিংহে তিনটি শ্রেণীতে ভূমিহীন, গৃহহীনদের পুনর্বাসন করার পক্রিয়া রয়েছে। “ক” শ্রেণীর ভূমিহীন, গৃহহীন পরিবারের সংখ্যা ৪হাজার ৭শত ৮টি পরিবার। “খ” শ্রেণীর (যার ০১-১০ শতাংশ জমি আছে কিন্তু ঘর নাই) তাদের সংখ্যা ৯ হাজার,৪শত ১৯টি পরিবার, “ গ” শ্রেণীর ( যার ০১-১০ শতাংশ জমি আছে কিন্তু জরাজীর্ন, অনুপযোগী ঘর আছে ) তাদের সংখ্যা ৭ হাজার,২শত ২৩টি পরিবার। ময়মনসিংহে প্রথম পর্যায়ে ৯টি উপজেলা ২৫০টি “ক” শ্রেণীর জন্য ভূমি মন্ত্রনালয় ২৯ অক্টোবর গৃহের রবাদ্দ প্রদান করা হয়। দ্বিতীয় পর্যায়ে “ক” শ্রেণীর জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয় থেকে ১৯ নভেম্বর ৯টি উপজেলার জন্য ১০৫৫টি গৃহের জন্য বরাদ্দ প্রদান করেন। গত ২৩ নভেম্বর জেলা প্রশাসক ১৩টি উপজেলায় ১৩০৫টি ঘর মাধ্যমে বিভাজন করে উপবরাদ্দ প্রদান করেন। এ সময়ে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, দুই কক্ষ বিশিষ্ট সেমিপাকা প্রত্যেকটি বাড়ির জন্য ১ লাখ৭১হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে এবং প্রত্যেকটি পয়সা যথাযথভাবে খরচ করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ২৫০টি এবং ২য় পর্যায়ে ১০৫৫টি ঘর নির্মান করা হচ্ছে। এ ছাড়াও দুইটি উপজেলার দুই আশ্রয়ন কেন্দ্র ব্যারাক নির্মান করা হয়েছে । গৌরীপুর উপজেরলার ভাংনামারী ব্যারাকে ২৫টি এবং ধৌবাউড়া উপজেলার ঘোষগাঁও ব্যারাকে ৪০টি পরিবারকে ঘর প্রদান করা হয়েছে। আগামী ২৩ জানুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্বোধন করা হবে, তিনি জানান। কেউ ভুমি ও গৃহহীন থাকবে না। পর্যায় ক্রমে সকলকেই গৃহ র্নিমান করে প্রদান করা হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৩ জানুয়ারি সকালে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে যাবতীয় কাগজপত্র তিনজনকে উপহার দেওয়ার পরপরই সারা দেশে গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্তর করা হবে। ক্ষুধা-মুক্ত-দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা বিনির্মাণে মুজিববর্ষে “ বাংলাদেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না” সরকারের এই এ নিদের্শনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষের বাসস্থান নিশ্চিতকল্পে“ মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য গৃহ প্রদান নীতিমালা ২০২০” প্রণয়ন করা হয়। গত জুন মাসে (২০২০) সালে উপজেলা নিবার্হী অফিসার ও জেলা প্রশাসকগণের মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৮ লক্ষ ৮৫ হাজার ৬শত ২২টি পরিবারের তালিকা করা হয়েছে। তার মধ্যে ময়মনসিংহ জেলায় ১৪হাজার ১শত ২৭টি পরিবার রয়েছে। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৩০ লাখ শহীদের বিনিময়ে ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা অর্জনের পর সর্বপ্রথম জাতির জনক দেশের ভূমিহীন-গৃহহীন-ছিন্নমূল অসহায় মানুষের পূর্নবাসনের উদ্যোগ গ্রহন করে ছিলেন।

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত